মাশরুম চাষে, আপনিও লাভবান হবেন.

বর্তমানে এরকম অনেকেই আছেন যারা কি করে একটা ভালো ইনকাম করবেন তা খুজে পাচ্ছেন না| তাদের জন্য আমরা একটি ভালো আইডিয়া নিয়ে এসেছি| যার মাধ্যমে আপনারা খুব অল্প পরিশ্রমের মাধ্যমে একটি ভালো কামাই করার রাস্তা খুঁজে পেতে পারেন| এবং সচরাচর এর মাধ্যমে অনেকেই ভালো কামাই করছেন| আপনারা যদি চান তবে আপনারাও এই কাজ করে ভালো ইনকাম বাড়িতে বসে বসে পড়তে পারে| আর সেটি হল মাশরুম চাষ| চাষ করার জন্য আপনাকে বিশেষ কিছু করতে হবে না| আপনি চাইলেই আপনার বাড়িতে স্বল্প জায়গার মধ্যে খুব সুন্দরভাবে এই চাষ করে একটি ভালো উপার্জন করতে পারেন|

 

 

এই চাষের জন্য আপনাদের বিশেষ কোনো কিছুর প্রয়োজন নেই | এর জন্য যে জায়গাটি আপনার প্রয়োজন সেটি অবশ্যই আলোবিহীন সেতসেতে পরিবেশ হতে হবে | এছাড়া এর জন্য প্রয়োজন, খড়, পাটের রশি যা আপনি সহজেই পেয়ে যাবেন| বড় মাপের ক্যারি ব্যাগ, গম এর গুরু, বা চালের গুঁড়ো| এছাড়া আপনি যদি চান যে আপনি বিজ্ঞানসম্মত উপায় চাষ করতে| তাহলে আপনাকে আপনার পার্শ্ববর্তী কোন ফার্ম যেখানে মাশরুম চাষ করা হয়| তাদের কাছ থেকে আপনি চাইলে চাষের ট্রেনিং পদ্ধতি জানতে পারেন| এবং তারাই আপনাকে চাষের জন্য কি কি প্রয়োজন তা জানিয়ে দেবেন|

চাষের পদ্ধতি বিশ্লেষণ:- এর জন্য আপনাকে প্রথমে যে খড় গুলি আপনি নিয়েছেন | এগুলি কি এক বা দেড় ইঞ্চি করে কেটে টুকরো টুকরো করতে হব| তারপরই এগুলিকে একটি বস্তায় ভরতে হবে| এরপর একটি বড় পাত্রে এর মধ্যে পরিমাণমতো জল নিতে হবে| সেই জলে কিছু পরিমাণ ব্লিচিং পাউডার মিশিয়ে দিতে হবে | যখন আমাদের এই মিশ্রণে তৈরি হয়ে গেল তারপর শেখরের টুকরোর বস তাকে আমরা এই জলের মধ্যে ১২ ঘন্টার জন্য লুকিয়ে রাখবো| ১২ ঘন্টা পর এই বস্তা টি জলের মধ্যে থেকে উঠিয়ে এর মধ্যে থাকা জলকে ভালোভাবে ঝরিয়ে নেব| যখন জল পূর্ণরূপে ঝরে যাবে তখন এরমধ্যে আমরা শ্রী গুরু বাবা গুরু চালকে মিশ্রিত করব| তারপর সেই মিশ্রিত খড় কে পলিথিন এর প্যাকেটের মধ্যে যতটা পারা যায় চেপে চেপে ভোরব| তারপর সেটিকে রশ্মির সাহায্যে শক্ত করে রাখতে হবে| এভাবে যখন সব খড় গুলি বাধা হয়ে যাবে| তখন সেগুলিকে সেই অন্ধকারে ঘরের মধ্যে সারি সারি করে সাজিয়ে রাখব| আরেকটা জিনিস আমাদের অবশ্যই মনে রাখতে হবে তা হলো এই ঘরগুলির উপরে ছোট ছোট ছিদ্র করে দিতে হবে যাতে মাসুমের অংশগুলির বাইরে আসতে পারে| এভাবে কিছুদিন রাখার পর আমরা দেখব যে স্বাভাবিকভাবেই এখান থেকে মাশরুমের চারা বের হতে শুরু করেছে| এভাবে প্রায় ২৩ সপ্তাহ পর থেকে আমরা মাসুম কালেক্ট করে তা বাজারে বিক্রি করার মতন করতে পারি|

এছাড়াও যদি কেউ মনে করে থাকেন যে আপনারা আগে কোথাও থেকে একটা ট্রেনিং করবেন| তাহলে আপনারা সে ক্ষেত্রে তা করতে পারেন তার জন্য পশ্চিমবঙ্গের কোথায় কোথায় মাশরুম চাষের ট্রেনিং দেওয়া হবে মাশরুম চাষের সম্পর্কে বিস্তারিত শেখানো হয় তাদের কিছু অফিসের ঠিকানা দেওয়া থাকলো|

Jini mushroom farm (mushroom spawn/mushroom training center/oyster mushroom/ mushroom farm kolkata )

purushottam mushroom|Merchant logo Rising Fungi Mushroom Seed Supplier 

Spawn Laboratory & Mushroom Cultivation Training Centre|JOYGURU MUSHROOM CULTIVATION

 

যেগুলো আমরা দিয়েছি সেগুলো ছাড়াও আপনাদের যদি মনে হয় যে না আরো অন্য কোথাও বা আপনাদের পাশাপাশি আপনারা করছেন তাহলে আপনারা ইন্টারনেটে গিয়ে অতি সহজেই এসব ফার্মের ঠিকানা পেতে পারেন|