রাজ্য সংবাদ: এসএসসি পোদে আপার প্রাইমারি নিয়োগ নিয়ে জটিলতা বেড়েই চলেছে রাজ্য সরকারের তরফ থেকে । সে কারণেই পরীক্ষার্থীরা ১ ডিসেম্বর থেকে রাতভর অনশন করে চলেছেন আচার্য সদনের সম্মুখ স্থানে , আজ ২ ডিসেম্বর দ্বিতীয় দিন । হবে অবশেষে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন হাইকোর্টের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আসার পরেই দশ দিনের মধ্যেই যোগদান প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন করবেন ।

এস এস সি পদে আপার প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগের নোটিফিকেশন জারি করা হয়েছিল ২০১৪ সালে এবং এক বছর ২০১৫ তে তার লিখিত পরীক্ষা নেওয়া হয় সেই পরীক্ষার চূড়ান্ত ফল ২০১৯ সালে আসার পরেও এখনো পর্যন্ত একজন কেউ নিয়োগ করা হয়নি । সেকারণে সেদিন পরীক্ষার্থীরা অবশেষে অনশন বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে আচার্য সদনে সম্মুখ স্থানে । সেই বিক্ষোভে শামিল হয় হাজার হাজার চাকরিপ্রার্থী । সেই কারণেই বর্তমানে স্কুল শিক্ষা দপ্তর অনেকটাই বিব্রত । অবশেষে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় প্রেমের কন্ট্রোল নেমে পড়লেন। তিনি নিয়োগ প্রক্রিয়া দেরি হওয়ার জন্য পরী দায়বদ্ধতা চাপিয়ে দিচ্ছেন আদালতের কাছে ।
অবশেষে বুধবার দুপুর নাগাদ শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে রাজ্য সরকারের অবস্থান জানিয়েছেন তিনি । তিনি জানিয়েছেন এখন পর্যন্ত আপার প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়াটি আদালতের বিচারাধীন আছে, সুতরাং আদালতের চূড়ান্ত রায় না পাওয়া পর্যন্ত নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা যাচ্ছে না । তবে শিক্ষা মন্ত্রী আশ্বাস দিয়েছেন আদালতের রায় বেরোনোর সাথে সাথেই কয়েক দিনের মধ্যেই পুরোপুরি নিয়োগ প্রক্রিয়াটি সম্পূর্ণ করবেন । তিনি আরো জানিয়েছেন প্রয়োজন হলে দশ দিনের মধ্যেই পুরোপুরি নিয়োগ প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন করবে রাজ্য সরকার । শুধুমাত্র আদালতের রায়ের অপেক্ষায় আছে রাজ্য সরকার । তবে অন্যদিকে চাকরিপ্রার্থীদের দাবি ইতিমধ্যেই আদালতের রায় বেরিয়ে গেছে তা সত্ত্বেও রাজ্য সরকার কৃত ভাবে প্রক্রিয়াটি পিছাচ্ছে । বিক্ষোভকারীরা আরও জানিয়েছেন গত সাত বছর ধরে আপার প্রাইমারি নিয়োগ শেষ করতে পারছিনা রাজ্য সরকার । তাদের দাবি অতি শীঘ্রই নিয়োগ প্রক্রিয়া টি সম্পন্ন করা হোক । তার ফলেই মঙ্গলবার সকাল থেকে স্কুল সার্ভিস কমিশনের সদর দপ্তরের সামনে বসে অবস্থান বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে চাকরি প্রার্থীরা । মঙ্গলবার কনকনে ঠান্ডার মধ্যে রাতভর অনশন করে বিক্ষোভ প্রদর্শন দেখাচ্ছে, আইও জানিয়েছে যতদিন পর্যন্ত না এ নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে ততদিন পর্যন্ত তারা এভাবেই বিক্ষোভ দেখাতে থাকবে ।