দেশের সব জেলাতে রাস্তায় নামছে বিজেপি, নতুন কৃষি আইন বুঝাতে শতাধিক বৈঠক

 

রাজ্য সংবাদ: নতুন কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে গোটা দেশজুড়ে কৃষকেরা রাস্তায় আন্দোলোনে নেমেছে। যার ফলে কেন্দ্র সরকারের অনেকটাই চাপের মুখে পড়েছে। গত ১৬ দিন ধরে কৃষকেরা আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে।মনে করা হচ্ছে আগামী বছর পাঁচটি রাজ্যে নির্বাচনে এর প্রভাব পড়তে পারে। তাই আগে থেকেই নতুন কৃষি আইন বোঝানোর জন্য আসরে নামছেন বিজেপি। ছকে ফেলা হয়েছে মেগা পরিকল্পনা। যাতে কৃষকদের বোঝানোর চেষ্টা করা হবে, যে কেন্দ্রের পাস করানো বিতর্কিত তিনটি আইন আসলে তাদেরই স্বার্থরক্ষা করেছে।

কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে আন্দোলন শুরু করে কৃষক সংগঠনগুলির। এর জন্য সরকার কৃষক সংগঠনগুলির সাথে মোট ৬ দফা বৈঠক সেরেছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীরা। কিন্তু এতে কোনো লাভ হয়নি। কৃষক সংগঠনগুলির আইন প্রত্যাহারের দাবিতেই অনড়। উল্টে সরকারকে হুমকি দিয়েছে। সরকার যদি আইন বাতিল না করে তাহলে বড়োসড়ো আন্দোলনে নামবে কৃষকেরা। কৃষক সংগঠনগুলির মধ্যে একটি সংগঠন ইতিমধ্যেই সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছে। সরকারের সাথে কোন আলোচনা করার ব্যবস্থা বন্ধ করে দিয়েছেন কৃষকেরা। পরিস্থিতি এভাবে গম্ভীর হয়ে উঠছে তাতে সমস্যা শেষ হবার  নয়। এদিন আরো একবার কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমার কৃষকদের আন্দোলন ছেড়ে আলোচনায় বসার আহ্বান জানিয়েছেন।তিনি আরো জানান সরকারের তরফ থেকে কৃষকদের যেকোনো প্রস্তাব শুনতে রাজি। কিন্তু কৃষকের তরফ থেকে কোন সাড়া মেলেনি। কৃষক সংগঠনগুলি আইনটি বাতিলের দাবিতে অনড় রয়েছে।নরেন্দ্র সিং তোমার কৃষকদের কাছে অনুরোধ করে বলেন, আপনারা সাধারণ মানুষের অসুবিধার কথা ভেবে আন্দোলন প্রত্যাহার করুন। এবং আলোচনায় বসুন। আপনাদের সব শর্ত মানবে সরকার।

দেশের যে সকল রাজ্যের কৃষি আইনের বিরুদ্ধে আন্দোলন করছেনা, সেই প্রান্তের কৃষকদের আন্দোলনে প্রভাবিত যাতে না হয় তার নিশ্চিত করার জন্য পরিকল্পনায় কাজ শুরু করে দিয়েছে গেরুয়া শিবির। শুক্রবার থেকে দেশের প্রত্যেকটি সাংগঠনিক জেলায় কৃষকদের এই আইন বোঝানোর জন্য সভা করেছে গেরুয়া শিবির। সোশ্যাল মিডিয়ায় আইনটির সম্পর্কে সচেতনতা করার জন্য ইতিমধ্যেই প্রচার শুরু হয়ে গেছে। এর পরে দেশের প্রত্যেকটি জেলা জুড়ে দেশি কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা বিজেপি নেতারা শতাধিক সাংবাদিক বৈঠক করবেন। কৃষকদের বোঝানোর চেষ্টা করা হবে, আন্দোলনকারী কৃষকরা আসলে বিরোধীদের দ্বারা প্ররোচিত হচ্ছেন। যাতে করে কেন্দ্র সরকারের ওপর চাপ বাড়ানো যায়। এতে কৃষকদের কোন লাভ নেই । নতুন কৃষি আইন কৃষকদের সুবিধা করার জন্যই আইনটি পাস করা হয়েছে।