কৃষক আন্দোলনের জেরে,১৩০০ টাওয়ারের বিদ্যুৎ সংযোগ কেটে দেওয়ায়,বিপাকে জিও কম্পানি

 

রাজ্যসংবাদঃ  কেন্দ্রীয় সরকারের কৃষি বিল আসার পর থেকেই পুরো দেশ তথা বিশেষ করে পাঞ্জাবের কৃষকেরা এই আইনের বিরুদ্ধে আন্দোলনে নামেন। আন্দোলনকারী কৃষক ও তাদের সমর্থনকারীরা কেন্দ্র সরকারের পাশাপাশি আঙ্গুল তুলেছে বিভিন্ন কর্পোরেটের দিকে। আর এবার তারা রিলাইন্স জিও কে সরাসরি লক্ষ্য হিসেবে নিয়েছে।

এরফলে রিলায়েন্স জিও এর পরিষেবা ব্যাহত হয় এবং গ্রাহকরা অসুবিধায় পড়ে। এজন্যই আন্দোলনরত কৃষকরা রাজ্যের থাকা মোবাইল টাওয়ারের বিদ্যুৎ সংযোগ কেটে দেয়। এমনই তথ্য জানান সর্বভারতীয় একটি সংবাদপত্র। পাঞ্জাবে প্রায় নয় হাজার টাকা রয়েছে । জিও টাওয়ার গুলির বিদ্যুৎ সংযোগ কেটে দেওয়া হয়েছে সেগুলোর মধ্যে অনেকগুলো টাওয়ারের ফাইবার কেটে দেওয়া হয়েছে।

এই রাজ্যের কৃষকরা সরকারের নতুন কৃষি আইনের বিরুদ্ধে আন্দোলনে নেমেছেন। তাদের দাবি সরকারকে নতুন কৃষি আইন তুলে নিতে হবে। পাশাপাশি তারা স্লোগান তুলেছে আম্বানি আদানি গোষ্ঠীর পন্য বর্জন করতে হবে । তবে শিল্পমহলের অধিকাংশের মতে কৃষকদের এমন আচরণ গ্রহণযোগ্য নয়। কারণ যদি তারা রিলায়েন্স এর পণ্য অথবা জিও সিম না নেই অথবা পুরনো কানেকশন ছেড়ে দেয় সেটা একরকম শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদ । কিন্তু এমন ভাবে কোন কোম্পানির সম্পত্তি নষ্ট করে প্রতিবাদ জানান ওটা সঠিক পথ নয়।

কৃষকদের এমন আচরণে পরিস্থিতি খুবই সঙ্কটজনক হয়ে ওঠে গত ২৫ শে ডিসেম্বর। কৃষকদের এমন আচরণের ফলে অবশেষে পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিং সিং কে কৃষকদের কাছে আবেদন করতে হয়– যেন তারা এমন কিছু না করে যাতে জনসাধারণকে কোন অসুবিধার মধ্যে পড়তে হয়। টাওয়ার ইনফ্রাস্ট্রাকচার প্রাইভেট এসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে অনুরোধ জানানোর জন্যই মুখ্যমন্ত্রীকে এমন আবেদন করতে হয় কৃষকদের কাছে যাতে কৃষকরা এমন ধ্বংসাত্মক কাজ না করে ।

তিনি কৃষকদের কাছে আবেদন রাখেন, যেন জোর করে কোন টেলিকম সংস্থার সংযোগ বন্ধ করে দেওয়া না হয়। এছাড়াও টেলিকম সংস্থায় কর্মরত কোন কর্মীর উপর যেন কোন রকম হামলা না হয়। তিনি এও বলেন ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য আমাদের যেসব ইনফ্রাস্ট্রাকচার প্রয়োজন আছে সেগুলো যেন কোন রকম ক্ষয়ক্ষতি না হয়। তিনি কৃষকদের উদ্দেশ্যে আবেদন জানিয়ে, বলেন ভবিষ্যতে এমন ঘটনা যেন না ঘটে এবং এমন ঘটনা ঘটা উচিত নয়