মাত্র ১০০ টাকা জমা করলেই পোস্ট অফিস দিচ্ছেন মোটা রিটার্ন |

 

আমাদের জানার বাইরে এরকম অনেক স্কিম পোস্ট অফিসের আছে যাতে আমরা খুব অল্প পরিমাণে ইনভেস্ট করে রিটার্ন পেতে পারি| অনেকের মনে হতো এরকম অনেক ভুল ধারণা আছে যে বেশি টাকা রিটার্ন পাওয়ার জন্য বেশি বেশি করে ইনভেস্ট করতে হবে| যদি এরকম কেউ ভেবে থাকেন তবে আপনার চিন্তাভাবনা একেবারেই ভুল| আপনি খুব অল্প পরিমাণ ইনভেস্ট করে পোস্ট অফিসের কাজ থেকে মুনাফা পেতে পারেন|

এরকম অনেকেই আছেন যাদের হয়তো বেশি টাকা ইনভেস্ট করার মত সাধ্য নেই কিন্তু তারাও চাইছেন জীবনে অল্প অল্প করে কিছু ইনভেস্ট করে একটা মোটা রিটার্ন পাওয়ার| তাদের জন্য সুবর্ণ সুযোগ এনে দিয়েছেন পোস্ট অফিস| পোস্ট অফিসের বিভিন্ন স্কিম এর মাধ্যমে আপনারা খুব অল্প পরিমাণে টাকা ইনভেস্ট করে অনেক বেশি পরিমাণে রিটার্ন পেতে পারেন|

 

 

ঠিক এরকমই একটি ইস্কিম পোস্ট অফিস এনেছে| যেখানে আপনি মাসে মাত্র ১০০ টাকা জমা করতে পারবেন এবং তার পরিবর্তে আপনি ইমোটা মুনাফা করতে পারবেন| এই বিশেষ ক্রিমের নাম হল পোস্ট অফিস রেকারিং ডিপোজিট স্কিম| এই সিমের মাধ্যমে গ্রাহকরা বিভিন্ন রকমের আরো সুযোগ সুবিধা পাবেন| এখানে ছোট ছোট রেকারিং ডিপোজিট এর মাধ্যমে কিস্তিতে সুদের হার ও সরকারি গ্যারান্টি পাওয়া যায়| আপনি পোস্ট অফিসে পাঁচ বছরের জন্য এই স্কিমগুলি করতে পারেন| তবে কিছু ব্যাংক আছে যারা ছয় মাসে এক বছর দুই বছর বা তিন বছরের জন্য আরডি করার সুবিধা দেন| ব্যাংকের নিয়ম অনুসারে রেকারিং ডিপোজিট এর ক্ষেত্রে ব্যাংক তিন মাস পর পর ইন্টারেস্ট আপনার একাউন্টে পাঠিয়ে দেয়|

ইন্ডিয়ান পোস্ট এর ওয়েবসাইটে দেওয়া তথ্য অনুযায়ী রেকারিং ডিপোজিট এর ক্ষেত্রে ব্যাংক থেকে ৫.৮ শতাংশ হারে সুদ প্রদান করা হয়| ২০২০ এর নতুন সুদের রেট ১ এপ্রিল ২০২০ এ লাগু করা হয়েছে| এক্ষেত্রে সুদের হার তৈরি মাসিক হিসেবে প্রদান করা হয়|

পোস্ট অফিসের নিয়ম অনুসারে এখানে নিম্নতম মাসিক ১০০ টাকা জমা করা যায়| আর অধিক তোমার কোনো সীমা নেই| এক্ষেত্রে একের বেশি রেকারিং ডিপোজিট আপনি খুলতে পারবেন বা গ্রাহকরা খুলতে পারবে| তবে এখানে একটা খেয়াল রাখার বিষয় হলো যে একের বেশি যেসব রেকারিং একাউন্ট খুলবেন সেগুলো সবই আপনার নিজের নামে হতে হবে, কোন পরিবার বা সংস্থার নামে খোলা যাবে না|