‘রোজগার বন্ধ ‘, সত্যিটা সবার সামনে তুলে ধরার অনুরোধ জানালেন |

সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়ার পরই রোজগার থেকে বিচ্ছিন্ন হয়েছেন তিনি এমনটাই জানালেন তিনি | তিনি আরো জানিয়েছেন তিনি নির্দোষ তাকে ফাঁসানো হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন | তিনি স্পষ্টভাবে জানিয়েছেন, এই বিষয়টা এগোতে এতো দূর পর্যন্ত এগিয়ে যাবে এটা ভাবেননি | তাই সোশ্যাল মিডিয়ায় ভিডিও করে প্রচার করিনি বা আগে কোথাও অভিযোগ জানাইনি। আসল সত্যটা সবার সামনে তুলে ধরা হয় প্রশাসনকে অনুরোধ করেছেন |

তিনি স্পষ্ট ভাবে জানালেন ” ১৫ বছর আগে মারা গিয়েছেন। মা অসুস্থ। একমাত্র বাড়িতে রোজগার করি আমি। ২৬ মাস ধরে কাজ করছি Zomato-র সঙ্গে। যতদিন তদন্ত চলবে Zomato আমার ID Block করে রাখবে। আমার রোজগার বন্ধ হয়ে গিয়েছে। তাই আমি দ্রুত চাই এর সত্যতা যাচাই হোক। এই ধরনের কোন অভিযোগ উনার নামে আগে কোনও দিন হয়নি” |মহিলা আমায় খাবার ফেরত নিয়ে যেতে বলেন, অন্যদিকে কোম্পানি আমাকে ফোন করে বলে গ্রাহককে বোঝাতে তিনি যে খাবার Cancel করে দেন। কিন্তু, মহিলা উত্তেজিত হয়ে নোংরা কথা বলেন। চিৎকার করতে শুরু করেন। এরপর চটি ছুড়ে মারেন। সেই চটির থেকে বাঁচতে হাত এগিয়ে দিই। তখন ওঁনার নিজের হাতের আংটি দিয়ে নাকে লেগে যায়’ |

প্রসঙ্গত হিতেশা চন্দ্রানী খাবার অর্ডার করেছিলেন। যা আসার কথা ছিল ৩.৩০ নাগাদ। কিন্তু Zomato Delivery Man তা যথাস্থানে পৌঁছতে ১ ঘণ্টা বেশি সময় নিয়ে নেন। অভিযোগ চন্দ্রানীর জানিয়েছেন ” তাঁকে দাঁড়াতে বলেন তিনি। সেই সময় ফ্রিতে বা খাবার ফিরিয়ে দেওয়া সম্ভব কিনা সে বিষয়ে কথা বলছিলেন । ডেলিভারি বয় দাঁড়াতে রাজি হয় না এবং খাবার ফিরিয়ে নিয়ে যেতে চান না। এরপরই শুরু হয় বচসা এবং চন্দ্রানীর অভিযোগ এরপরই Zomato delivery boy ঘুসি মেরে নাক ফাটিয়ে দেন। উনার সঙ্গেও খারাপ ব্যবহার করেছেন |

সম্পর্কের বিষয়টি খতিয়ে দেখার অনুরোধ করলেন ডেলিভারি বয় | তবে অনেকেই ডেলিভারি বয় পক্ষ থেকে উনাকে সাপোর্ট করছেন |