সবজির দাম আগুন, অন্তত কয়েক মাস কমার আশা নেই

বর্তমান পরিস্থিতি দেখে সামনের আরও কয়েক মাস সবজির দাম কমার কোনো আশা নেই| বাজারে আলু ,পিয়াজ ও ডিমের দাম কমার কোন সম্ভাবনা নেই বললেই চলে| এছাড়া যেসব সবজি বাজারে পাওয়া যায় তাদের ক্ষেত্রে প্রায় একই অবস্থা| দাম কমার আশা তো নেই বরং দিন দিন বেড়েই চলেছে| নিম্নবিত্ত ও মধ্যবিত্ত পরিবারের জন্যে একটি চিন্তার কারণ হয়ে উঠেছে|

এ সপ্তাহের কেন্দ্রের প্রকাশিত একটি পরিসংখ্যান থেকে দেশের অর্থনীতি যে ছবি ফুটে উঠেছে তা দেখে এটা স্পষ্ট হয়ে ওঠে| অন সরকারি পরিসংখ্যান অনুসারে, দেশের মধ্যে এখন খুচরো মুদ্রাস্ফীতি চলছে| আর এই মুদ্রাস্ফীতি চলতে পারে প্রায় আরো কয়েক মাস ধরে| গত কয়েক বছরের মধ্যে এবারের মুদ্রাস্ফীতি সর্বোচ্চ প্রায় সাড়ে ৭ শতাংশের উপরে|

সরকারের তরফ থেকে যে তথ্য বেরিয়ে আসছে সেখান থেকে দেশের মুদ্রাস্ফীতি চলছে তার প্রায় ৪৬% দায় পরছে আলু, পেঁয়াজ, মাছ ,মাংস, টমেটো, ডিম জাতীয় দৈনন্দিন প্রয়োজনীয় জিনিসের উপর| এই সবকটি দৈনন্দিন জিনিসের দাম বর্তমানে সর্বোচ্চ| আর প্রায় প্রতিদিনই এদের দাম বেড়েই চলেছে| সরকারি পরিসংখ্যান অনুসারে আরো দীর্ঘ কয়েক মাস এদের দাম কমবে বলে আশা করা যাচ্ছে না|

সরকারের তরফ থেকে এই মুদ্রাস্ফীতির বিভিন্ন কারণ দেওয়া দেখানো হচ্ছে| এই কারণগুলোর মধ্যে বিশেষত বর্ত্তমান বছরে অতিবৃষ্টি ও ভোজ্যতেল আমদানি আরো মূল্যবান হয়ে ওঠা কে দেখানো হয়েছে| এবছর অতিবৃষ্টির কারণে বর্ষাকালীন প্রায় সব ফসলের ক্ষতি হয়েছে| ফলে চাষবাসের অনেক ক্ষয়ক্ষতি হয় যার জন্য বাজারে ওটা সবজির পরিমাণ অনেক কমে গেছে| ফসলের বীজ ঠিকমত অঙ্কুরিত হতে পারেনি| মূলত অতিবৃষ্টির কারণে|

সরকারি পরিসংখ্যান জানিয়েছে দেশে খাদ্য মুদ্রাস্ফীতি হুহু করে বেড়ে গিয়েছে অক্টোবর মাস থেকেই যা প্রায় ১১ শতাংশের উপরে চলে গিয়েছে| প্রায় নয় দশ মাস ধরে খাদ্য মুদ্রাস্ফীতি দেশে প্রায় এতটা বাড়েনি|