আবার দিল্লিতে বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করেল কৃষক, মোদি সরকারের চাপ আরও বাড়ল

 

রাজ্য সংবাদঃ কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে এক মাসেরও বেশি সময় ধরে কৃষকরা আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে। এই আন্দোলনের জেরে অনেক কৃষকেই প্রাণ হারিয়েছে। এর আগেও দেখেছি গত বছর ডিসেম্বর মাসে এক আইনজীবী স্বইচ্ছায় বিষ খেয়ে প্রাণ দিয়েছিলেন। ফের নতুন বছরে এমন একটা ঘটনা ঘটল দিল্লিতে। ফের কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে দিল্লির সিঙঘু সীমান্তের বিক্ষোভরত একজন বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করল। ঘটনাটা সত্যি কিনা তা নিয়ে যাচাই করেছেন দিল্লি পুলিশ, শনিবারে দিল্লি পুলিশ জানিয়েছেন ঘটনাটি সত্যি। মৃত আন্দোলনকারী কৃষকের নাম অমরিন্দর সিং। জানা গেছে ৪০ বছর বয়সি এই কৃষক দিল্লির সিঙঘু সীমান্তে নতুন কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে যে আন্দোলন চলছে তাতে যোগ দেন। মৃত কৃষক পাঞ্জাবের ফতেহগড়ের সাহিব জেলার বাসিন্দা।

জানা যায়, শনিবার রাতে তিনি বিষ খেয়ে ছিলেন। ঘটনাটি জানাজানি হতেই তাকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু দেরি হয়ে যাওয়ার কারণে তাকে রক্ষা করা যায়নি। এ ঘটনাটি ঘটেছে অষ্টম দফার বৈঠক নিষ্ফল হওয়ার পরে। ৮ তারিখ শুক্রবার শেষবারের মতো কৃষকদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন কেন্দ্র। ওই বৈঠকে কেন্দ্রীয় কৃষক নেতারা স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন  কোনভাবেই কিংবা কোনো পরিস্থিতিতেই কৃষক আইন বাতিল করা হবে না। কেন্দ্রের এই বার্তা স্বাভাবিকভাবে কৃষক নেতাদের পছন্দ হয়নি।

শুক্রবার দুপুর ২.৪৫ মিনিটে বৈঠক শুরু হয় কেন্দ্রীয় নেতা ও কৃষক নেতাদের মধ্যে। বৈঠক শুরু হতেই দুই পক্ষের থেকে নিজেদের অবস্থান বজায় রাখে। এদিন কেন্দ্রের তরফ থেকে সাফ জানিয়ে দেওয়া হয় কৃষি আইন কোন ভাবে বাতিল করা যাবে না। আর অন্যদিকে কৃষক নেতারাও নতুন কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে অনড় রয়েছেন।

বৈঠকের পর জানা গেছে, কেন্দ্র জানিয়েছে যে গোটা বিষয়ে নিষ্পত্তি করার জন্য সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হবে কেন্দ্র। যদি সুপ্রিম কোর্ট জানায় এই নতুন কৃষি আইন কৃষকদের স্বার্থ বিরোধী, ও এই অাইন অবৈধ তাহলে কেন্দ্র এই আইন বাতিল করে দিবে। আর যুদি রায় কৃষদের বিপক্ষে জায় তাহলে কৃষদের বিক্ষোব তুলে নিতে হবে।