দেশে যখন সবকিছু বন্ধ তখন দুই ভাইবোন মিলে ২১০০ পৃষ্ঠায় সম্পূর্ণ রামায়ণ লিখে ফেলেন , বিস্তারিত দেখুন

 

রাজ্য সংবাদঃ দেশ যখন বর্তমান পরিস্থিতির কারণে সবকিছু বন্ধ করে রেখেছিল তখনই দুই ছোট ভাইবোন মিলে ২১০০ স্টাইল সম্পূর্ণ রামায়ণ লিখে ফেলেন। বর্তমান পরিস্থিতির কারণে মানুষকে ঘরে থাকার বাধ্যতা করা হয়েছিল। আর সেই সময় বেশ কিছু টিভি চ্যানেলে রামায়ণ সম্প্রচার করা হয়। তবে আপনারা কি জানেন সেই সময়ে ছোট দুই ভাই বোন মিলে সম্পূর্ণ রামায়ণ টি লিখে ফেলে ২১০০ পৃষ্ঠায় মধ্যে। রাজস্থান জেলার নিবাসী তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণীতে পড়া মাধব জোসি এবং তার বোন অর্চনা স্কুল বন্ধ থাকায় ঘরে বসে ২১০০ পৃষ্ঠায় পুরো রামায়ণটি লিখে ফেলেন।

স্কুল বন্ধ থাকায় তারা নিজে হাতে পুরো রামায়ণ লিখে ফেলেন। এর জন্য তাদের ২০ টি খাতা ব্যবহার করে, অবশেষে তৈরি হয়েছে ২১০০ পৃষ্ঠার হাতে লিখা রামায়ান।তারা দুই ভাইবোন মিলে মোত ৭ ট আংশে এটি সম্পর্ন করে। এই ৭ টি অংশে রয়েছে
বাল কান্ড, অযোধ্যা কান্ড,‌ অরণ্য কান্ড , কিষ্কিন্ধা কাণ্ড , সুন্দর কান্ড , লংকা কান্ড, এবং উত্তর রামায়ণ, তারা একটি সম্পূর্ণ নিজে হাতে পেন ও পেন্সিল এর মাধ্যমে লিখেছেন।

তারা এই রামায়ণটি মোট ২০ খাতার মধ্যে সম্পন্ন করেছেন । এই ২০ খাতার মধ্যে ১৪ টি লিখেছেন মাধব, এবং ৬ টি খাতা লিখেছেন তার বোন অর্চনা। দুই ভাই বোনে জালোরের আদর্শ বিদ্যামন্দির স্কুলে পড়েন। মাধব পড়েন চতুর্থ শ্রেণীতে ও কার্বন অর্চনা পড়েন তৃতীয় শ্রেণীতে।তারা এত ছোট হওয়া সত্ত্বেও রামায়ণ সম্পর্কে পুরোপুরি সচেতন। তারা জানিয়েছেন নিজের পরিবারের সঙ্গে দুই ভাইবোন মিলে তিন থেকে চার বারের মত শ্রী রামচরিতমানস পড়েছেন। এটি পড়ার পরেই তাদের মনে রামায়ণ লিখার অনুভূতি জাগে, তার পরই তারা রামায়ণ লিখতে শুরু করে যখন তাদের স্কুল বন্ধ ছিল সেই সময়।