লোকাল ট্রেনে মহিলা যাত্রীর সুরক্ষার জন্য টক ব্যাক সিস্টেম.. বিস্তারিত জানুন

 

রাজ্য সংবাদ: রেলের তরফ থেকে মহিলা যাত্রীর সুরক্ষার জন্য লেডিস কামরায় বসতে চলেছে ইমারজেন্সি টক ব্যাক সিস্টেম ETB। যদি কোন মহিলা কোনরকম অসুবিধার সম্মুখীন হন তাহলে ট্রেনের গার্ড ও চালকের সাথে অডিও সিস্টেম এর মাধ্যমে যোগাযোগ করতে পারবেন। পরিস্থিতি বোঝার সঙ্গে সঙ্গে ট্রেন থামানোর বা পরের স্টেশনে গিয়ে ট্রেন দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নেবে ট্রেন চালক। এবং পরিস্থিতি বুঝে আরপিএফ ও জিআরপিএফ এ সঙ্গে যোগাযোগ করবে ট্রেন গার্ড।

দেখা যায়, মহিলা যাত্রীদের নিরাপত্তার জন্য আলাদা করে লেডিস স্পেশাল রয়েছে মুম্বাই ও কলকাতার মত জায়গায়। কিন্তু তা সত্ত্বেও অসংখ্য মহিলা যাত্রী লোকাল ট্রেন গুলিতেও যাত্রা করছেন। রাতের বেলায় বেশিরভাগ সময়ই মহিলা কামরা গুলিতে ফাকা থাকায় বিপদের আশঙ্কা বেড়ে যায়।বিগত সময়ে এরকম ঘটনা বহু দেখা গেছে। আপত্তিকর পরিস্থিতির বন্ধ করার জন্যই মহিলা কামরা গুলিতে বসানো হচ্ছে ইমারজেন্সি টক ব্যাগ  সিস্টেম। যার ফলে মহিলা যাত্রীরা রাতেও নিশ্চিন্তা যাত্রা করতে পারে।

জানা গেছে পাইলট প্রজেক্ট হিসেবে সেন্ট্রাল ট্রেলের ১৫৭টি ট্রেনে প্রথমেই সিস্টেমটি লাগানো হয়েছে। যদি ফলাফল ভালো মেলে তাহলে পরবর্তীতে তা আরো ট্রেনে লাগানোর ব্যবস্থা করা হবে। ট্রেনের মুখ্য জনসংযোগ অধিকারী শিবাজী সুতার জানিয়েছেন, মহিলা যাত্রীদের সুরক্ষার জন্যই এই প্রকল্পটি গ্রহণ করা হয়েছে। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে কাজ শুরু করা হবে,তবে শেষ হতে কয়েক মাস সময় লাগবে। জানা গিয়েছে মহিলা কামরায় দরজার পাশেই এই টক ব্যাগটি লাগানো থাকবে। যোগাযোগ কারী মহিলা তিন সেকেন্ড সুইটিকে চিপে ধরলেই চালক্যের সামনে থাকা ডেস্কে স্কিনে ইমারজেন্সি চিহ্ন ফুটে উঠবে। গার্ড ও চালক পরিস্থিতিবুঝে যাত্রীর সঙ্গে কথা বলবে। তারপরে প্রয়োজন বুঝে ট্রেনটিকে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিবেন।যদি একাধিক কল একসঙ্গে আসে তাহলে কল ওয়েটিং এর ব্যবস্থাটাও থাকছে। এবং একটা কল হোল্ডে রেখে অন্যজনের সাথেও কথা বলতে পারবে ট্রেন চালক। যদি ফেক কল হয় তাহলে কোন কামরার কোন গেট থেকে ফোন করা হচ্ছে তা বুঝে যাবে গার্ড চালাও ।